হুমায়ূন আহমেদের ৭ম মৃত্যু বার্ষিকী আজ, নুহাশ পল্লী সমাধিতে পরিবার ও ভক্তদের শ্রদ্ধা

56

সবুজ ঘাসে প্রসস্ত মাঠ, স্বচ্ছ লিলাবতী দিঘীর জল, দীর্ঘ দেহের ছাতিম গাছ আর লেখকের হাতে লাগানো অসংখ্য ঔষধী বৃক্ষ আগের মতই আছে। নেই শুধু নন্দিত কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদ। প্রিয় লিচুতলায় প্রাণভরে ঘুমাচ্ছেন তিনি। চার পাশে ঘুরছে তাঁর নির্মিত শ্রেষ্ঠ চরিত্র হিমু মিছির আলীসহ অসংখ্য ভক্তরা।
বাঙলা সাহিত্যিতের এই বর পুত্রের ৭ম মৃত্যু বার্ষিকীতে নুহাশ পল্লীর সমাধিতে ফুলেল শ্রদ্ধা জানিয়েছেন তাঁর ভাই আহসান হাবিব,শাওনের বাবা ইঞ্জি.মোহাম্মদ আলী ও অসংখ্য ভক্তরা। শুক্রবার সকাল ১০ টায় প্রথমে মোহাম্মদ আলী ও পরে ভাই আহসান হাবিব ফুলেল শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। গাজীপুর সদর উপজেলার পিরুজালী লেখকের নিজ হাতে গড়া নুহাশ পল্লীতে ফাতেহা পাঠ,মোনাজাত ও হিমু পরিবহনের র‌্যালীর মাধ্যমে তাকে দিনভর স্মরণ করা হয়। এ সময় তাঁর ভাই আহসান হাবিব সাংবাদিকদের জানান, সব স্বপ্নই যে পূরন হবে তা নয়,তবে হুমায়ূন আহমেদের ক্যান্সার হসপিটাল নির্মাণে আমরা কাজ করে যাচ্ছি। তাঁর সব লেখাই প্রকাশিত হয়েছে। সর্বশেষ একটি ডাইরী ছিল সেটাও হয়েছে। এখন আর অপ্রকাশিত কোন লেখা নেই। ১৯৪৮ সালের ১৩নভেম্বর নেত্রকোনার কেন্দুয়া উপজেলার কুতুবপুর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন হুমায়ূন আহমেদ। ২০১২ সালের ১৯ জুলাই পাঠকপ্রিয় এই লেখক মারাযান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here